আগামীতে উন্নত বিশ্বের মত বাংলাদেশে কোন বস্তি থাকবে না - ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এমপি


সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান স্বাধীনতা পদক-২০১৯ প্রাপ্তিতে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এমপি-কে আইইবি, চট্টগ্রাম কেন্দ্রের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখছেন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এমপি।

আগামী কয়েক বছরের মধ্যে উন্নত বিশ্বের মত বাংলাদেশে কোন বস্তি থাকবে না। ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি), চট্টগ্রাম কেন্দ্র আয়োজিত স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান ‘স্বাধীনতা পদক-২০১৯’ এ ভুষিত প্রকৌশলী সমাজের গর্ব ও পথিকৃত প্রবীণ প্রকৌশলী মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক বীর মুক্তিযোদ্ধা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এমপি-কে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত প্রধান অতিথি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এমপি উপরোক্ত কথা বলেন। তিঁনি আরো বলেন, ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পর দেশের শহরাঞ্চলে অবস্থানরত বস্তিবাসীদের স্থায়ী আবাসনের জন্য ফ্ল্যাট বরাদ্দ দেয়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। যা পরবর্তীতে সরকারের অর্থায়নে বাস্তবায়িত হয়েছে। তিঁনি আরো বলেন, চট্টগ্রাম শহরে অবস্থিত শহরবাসীদের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিতকরণে স্যুয়ারেজ প্ল্যান্ট নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। প্রধান অতিথি বলেন, বাংলাদেশকে উন্নত বিশ্বের আদলে গড়ে তোলার লক্ষে প্রতিটি উন্নয়ন পরিকল্পনা অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে ক্রমান্বয়ে বাস্তবায়িত হবে বলে উল্লেখ করেন। ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ১৯৭১ সালের যুদ্ধকালীন সময়ে কিভাবে শত্রু সেনাদের পরাস্ত করা এবং প্রতিরোধ করা হয়েছে সেদিনেরও স্মৃতিচারণ করেন। 

আইইবি, চট্টগ্রাম কেন্দ্রের উদ্যোগে প্রবীণ প্রকৌশলী ও প্রকৌশলী সমাজের গর্ব মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এমপি-কে সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান স্বাধীনতা পদক-২০১৯ এ ভুষিত করায় আজ ২০ জুন, ২০১৯ইংরেজী কেন্দ্রের সেমিনার কক্ষে সন্ধ্যা ৭:০০টায় সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। কেন্দ্রের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. প্রকৌশলী মোহাম্মদ রফিকুল আলম এর সভাপতিত্বে এবং কেন্দ্রের সম্মানী সম্পাদক প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক এর সঞ্চালনায় সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রের প্রাক্তন চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ, প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রকৌশলী জ.স.ম বখতেয়ার, প্রকৌশলী এম. শাহজাহান, প্রকৌশলী এম. আলী আশরাফ, পিইঞ্জ., প্রকৌশলী মোঃ দেলোয়ার হোসেন, পিইঞ্জ., প্রকৌশলী মোহাম্মদ হারুন, প্রকৌশলী মনজারে খোরশেদ আলম, প্রকৌশলী সাদেক মোহাম্মদ চৌধুরী, কেন্দ্রের প্রাক্তন ভাইস চেয়ারম্যান প্রকৌশলী এম. এ. রশীদ, ইয়ং  ইঞ্জিনিয়ার ফোরামের সভাপতি প্রকৌশলী রাজীব বড়–য়া প্রমুখ। 

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, স্বাধীনতার পর ছয়বার নির্বাচিত এই সংসদ সদস্য রাজনৈতিক জীবনে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় হুইপ বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী গৃহায়ণ ও গণপুর্ত মন্ত্রীসহ সরকারের গুরুত্বপূর্ন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করেন। একজন সৎ ভদ্র ন¤্র স্পষ্টবাদী ও উদার মনোভাবের মানুষ হিসেবে তিঁনি নিজ দলের নেতা কর্মীসহ চট্টগ্রামের সর্বস্তরের মানুষের নিকট সর্বজন শ্রদ্ধেয়। ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। 

মুক্তিযুদ্ধের একজন সাব-সেক্টর কমান্ডার হিসেবে তিঁনি এ অঞ্চলের হাজার হাজার তরুণকে সংগঠিত করে ভারতের বিভিন্ন ক্যাম্পে গেরিলা যুদ্ধের জন্য তাদেরকে প্রশিক্ষণ প্রদান এবং অস্ত্রসস্ত্র যোগাড় করে দেয়ার মত গুরুত্বপূর্ণ কাজে সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন করেন। লাহোরে অধ্যয়নকালে তিঁনি পূর্ব পাকিস্তান ছাত্র পরিষদের দায়িত্ব পালন করেন এছাড়া ছয় দফা আন্দোলনের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন এবং বর্তমানেও দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির লক্ষে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। বক্তারা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনকে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদানের জন্য দীর্ঘ পরে হলেও সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মান স্বাধীনতা পদক-২০১৯ ভুষিত করায় প্রকৌশলী সমাজ গর্ববোধ করছেন বলেও বক্তারা উল্লেখ করেন। 

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত প্রধান অতিথি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এমপিকে আইইবি, চট্টগ্রাম কেন্দ্রের পক্ষ থেকে স্বর্ন পদক, ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এমপি’র একটি পোট্রেট প্রদান করা হয়। এছাড়াও বঙ্গবন্ধু প্রকৌশলী পরিষদের পক্ষ থেকে এবং চুয়েট ছাত্রলীগ এলামনাই এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, এমপিকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। সংবর্ধিত প্রধান অতিথির জীবন বৃত্তান্ত পাঠ করেন কেন্দ্রের সম্মানী সম্পাদক প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক।

No comments

Powered by Blogger.