চুয়েটে ‘জিআইএস এবং এর প্রয়োগ’ শীর্ষক শর্ট-কোর্সের সনদ বিতরণ সম্পন্ন


চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় কেবল সনদপত্র প্রদানের জায়গা নয়। এটি নিত্য-নতুন জ্ঞান সৃষ্টির একটি সুবিস্তৃত পরিসর। বর্তমান সরকার গবেষণা ও প্রায়োগিক শিক্ষার প্রতি গুরুত্ব দিচ্ছে। শিক্ষা ও গবেষণা খাতে রেকর্ডসংখ্যক বরাদ্দ বাড়িয়েছে। কেননা একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি প্রায়োগিক জ্ঞানের বিকল্প নেই। চুয়েটের গ্র্যাজুয়েটদেরকেও আমরা সেভাবে তৈরি করছি। সে লক্ষ্যে উন্নত ও আধুনিক ল্যাবরেটরি সুবিধার পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সেমিনার-সিম্পোজিয়াম ও কর্মশালা আয়োজন বাড়ানো হয়েছে। চুয়েট ভিসি আরো বলেন, বর্তমানে আমরা একটি উন্নত-সম্মৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখছি। আমাদের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডকে টেকসই করতে হলে ইনোভেটিভ আইডিয়া/সৃজনশীল প্রজেক্ট নিয়ে কাজ করতে হবে। তবেই আমাদের শিক্ষাটা দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজে আসবে।

তিনি অদ্য ১৭ ফেব্রুয়ারি (রোববার), ২০১৯ খ্রি. পুরকৌশল বিভাগের সেমিনার কক্ষে আয়োজিত ‘জিওগ্রাফিক্যাল ইনফরমেশন সিস্টেম এন্ড ইটস অ্যাপ্লিকেশন (Geographical Information System-GIS & Its Application) শীর্ষক প্রশিক্ষণ শর্ট-কোর্সের সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। সেন্টার ফর রিভার, হারবার এন্ড ল্যান্ড-স্লাইড রিসার্চ (CRHLSR)-এর তৃতীয় ব্যাচের অংশগ্রহণকারীদের জন্য উক্ত অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

CRHLSR-এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. রিয়াজ আকতার মল্লিকের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডীন এবং গবেষণা ও সম্প্রসারণ দপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. সাইফুল ইসলাম, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী। সেন্টারের প্রভাষক জনাব আহাদ হাসান তানিমের সঞ্চালনায় শর্টকোর্সে অংশগ্রহণকারীর মধ্যে অনুভূতি ব্যক্ত করেন রাহুল বণিক। উল্লেখ্য, মোট ৭৫ জন আবেদনকারীর বিপরীতে ৪০ জন শিক্ষার্থীকে এই প্রশিক্ষণ শর্টকোর্সে অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া হয়।




No comments

Powered by Blogger.