আজ ১৪ ডিসেম্বর :: শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস - বাঙালি সূর্যসন্তানদের গভীরভাবে শ্রদ্ধাবনত চিত্তে স্মরণ করছি...


স্বাধীনতা যুদ্ধের শেষ পর্যায়ে এসে পাকিস্তান বাহিনী যখন বুঝতে শুরু করে যে তাদের পক্ষে যুদ্ধে জেতা সম্ভব না, তখন তারা নবগঠিত দেশকে সাংস্কৃতিক, সামাজিক শিক্ষাগত দিক থেকে দূর্বল এবং পঙ্গু করে দেয়ার জন্য পরিকল্পনা করতে থাকে ১৯৭১, ডিসেম্বর হতে ঢাকায় নতুন করে কারফিউ জারি করে ১০ ডিসেম্বর হতে বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ডের প্রস্তুতি নিয়ে ১৪ ডিসেম্বর পরিকল্পনার মূল অংশ বাস্তবায়ন হয় অধ্যাপক, সাংবাদিক, শিল্পী, প্রকৌশলী, লেখক-সহ চিহ্নিত বুদ্ধিজীবীদের পাকিস্তান সেনাবাহিনী তাদের দোসরেরা জোরপূর্বক অপহরণ করে নিয়ে যায় সেদিন প্রায় ২০০ জনের মত বুদ্ধিজীবীদের তাদের বাসা হতে চোখে কাপড় বেঁধে মিরপুর, মোহাম্মদপুর, নাখালপাড়া, রাজারবাগসহ অন্যান্য আরো অনেক স্থানে অবস্থিত নির্যাতন কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয় সেখানে তাদের উপর বীভৎস নির্যাতন চালানো হয় পরে তাদের নৃশংসভাবে রায়েরবাজার এবং মিরপুর বধ্যভূমিতে হত্যা করে ফেলে রাখা হয় এঁদের মধ্যে রয়েছেন . জি সি দেব, অধ্যাপক মুনীর চৌধুরী, অধ্যাপক জ্যোতির্ময় গুহঠাকুরতা, সন্তোষ ভট্টাচার্য, . মোফাজ্জল হায়দার চৌধুরী, অধ্যাপক মুনীরুজ্জামান, অধ্যাপক আনোয়ার পাশা, অধ্যাপক গিয়াসউদ্দিন আহমেদ, ডা. ফজলে রাব্বী, ডা. আলীম চৌধুরী, . গোলাম মোর্তজা, . মোহাম্মদ শফি, শহীদুল্লাহ কায়সার, সিরাজউদ্দীন হোসেন, নিজামুদ্দিন আহমেদ লাডু ভাই, খন্দকার আবু তালেব, গোলাম মোস্তফা, শহীদ সাবের, নাজমুল হক, আলতাফ মাহমুদ, নতুন চন্দ্র সিংহ, আর পি সাহা, আবুল খায়ের, রশীদুল হাসান, সিরাজুল হক খান, আবুল বাশার, . মুক্তাদির, ফজলুল মাহি, . সাদেক, . আমিনুদ্দিন, হাবিবুর রহমান, মেহেরুন্নেসা, সেলিনা পারভীন, সায়ীদুল হাসানসহ আরো অনেকে




শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে শহীদ বুদ্ধিজীবীসহ মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা....


Engineers Voice :: ইঞ্জিনিয়ার্স ভয়েস

(Spirit of engineers.....)

The most popular news media of engineering professionals….




No comments

Powered by Blogger.