প্রথম ওয়ানডেতে কাল মুখোমুখি শ্রীলংকা ও দক্ষিণ আফ্রিকা



টেস্ট সিরিজ শেষে এবার ওয়ানডে লড়াইয়ে নামছে স্বাগতিক শ্রীলংকা ও দক্ষিণ আফ্রিকা। আগামীকাল থেকে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শুরু করতে যাচ্ছে দু’দল। জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করার লক্ষ্য দু’দলেরই। ডাম্বুলায় সিরিজের প্রথম ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে।

টেস্ট সিরিজের দু’ম্যাচেই দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়েছে শ্রীলংকা। দু’ম্যাচের কোনটিতেই লড়াইয়ের ছিটেফোটাও দেখাতে পারেনি দক্ষিন আফ্রিকা। প্রথম টেস্ট ২৭৮ রানের পর দ্বিতীয় ম্যাচ ১৯৯ রানে জয় পায় শ্রীলংকা। ফলে দু’ম্যাচের সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হোয়াইটওয়াশ করে লংকানরা।

দু’ম্যাচের টেস্ট সিরিজ জয়ের স্বাদ নিয়ে ওয়ানডে লড়াই শুরু করছে শ্রীলংকা। দেশের মাটিতে খেলার সুবিধা পাচ্ছে তারা। এই সুবিধা কাজে লাগিয়ে সিরিজে ভালো করার ব্যাপারে আশাবাদি শ্রীলংকার অধিনায়ক এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। তিনি বলেন, ‘কন্ডিশন আমাদের পক্ষে। এই সুবিধা কাজে লাগিয়ে সিরিজে ভালো করতে চাই। সতীর্থরা ওয়ানডে সিরিজে ভালো করতে মুখিয়ে আছে। যার যার দায়িত্ব ঠিক মত পালন করলে ম্যাচে ভালো ফল করা সহজ।’

কন্ডিশনের সুবিধা কাজে লাগিয়ে সিরিজের শুরুটা ভাল করতে চান লংকার দলপতি ম্যাথুজ, ‘আমাদের প্রধান লক্ষ্য সিরিজ জয়। এজন্য সিরিজের শুরুটা ভালোভাবে করতে চাই। সিরিজের শুরুটা ভালো হলে পরের দিকে চাপ কম পড়বে। এজন্য আমাদের সেরা পারফরমেন্সই করতে হবে। প্রতিপক্ষকে কোন প্রকার সুযোগ দেয়া যাবে না। যেমনটা টেস্ট সিরিজে আমরা করেছি। দু’ম্যাচেই আমরা সেরা পারফরমেন্স করেছি। আশা করবো, ওয়ানডে সিরিজেও দল ভালো পারফরমেন্স করতে সক্ষম হবে।’

ইনজুরির কারণে এ সিরিজেও বল করতে পারবেন না ম্যাথুজ। এমনটা নিশ্চিত করেছেন তিনি, ‘এই সিরিজে বোলিং করবো না। নেটে বোলিং শুরু করেছি এবং আগের চেয়ে ভালো অনুভব করছি। তবে ম্যাচে বোলিং করে এখনই কোন ঝুঁকি নিতে চাই না।’

টেস্ট সিরিজে ধরাশায়ী হওয়া দক্ষিণ আফ্রিকা ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে বড় ফরম্যাটের দুঃস্মৃতি ভুলতে চায়। অধিনায়ক ফাফ ডু-প্লেসিস বলেন, ‘টেস্ট সিরিজের স্মৃতি এখনো ভুলতে পারিনি আমরা। তবে ওয়ানডে দিয়ে টেস্ট সিরিজের স্মৃতি ভুলতে চাই। শ্রীলংকার কন্ডিশনে তারাই সেরা। এ অবস্থায় লংকানদের হারানো কঠিন। তবে ওয়ানডে সিরিজে ভালো করার জন্য আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করবো। আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলতে হবে আমাদের। প্রথম ম্যাচ থেকেই প্রতিপক্ষকে চাপে ফেলতে হবে। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং তিন বিভাগেই শ্রীলংকা অনেক বেশি শক্তিশালী। আমরাও দল হিসেবে ভালো। কিন্তু সেটি মাঠে প্রমাণ করতে হবে। এটিই ভালো সুযোগ নিজেদের প্রমাণ করার।’

এখন পর্যন্ত আটবার দ্বিপক্ষীয় সিরিজের মুখোমুখি হয়েছে শ্রীলংকা ও দক্ষিণ আফ্রিকা। এরমধ্যে পাঁচটি সিরিজে জয় পেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। শ্রীলংকার জয় ছিলো ২টিতে। অমিমাংসিতভাবে শেষ হয় ১টি সিরিজ।

মুখোমুখি লড়াইয়েও এগিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। ৬৬ ম্যাচের লড়াইয়ে ৩৫টিতে জয় পায় প্রোটিয়ারা। ২৯টি ম্যাচ জিতে শ্রীলংকা। ১টি করে ম্যাচ টাই ও পরিত্যক্ত হয়।

শ্রীলংকা দল : এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ (অধিনায়ক), দাসুন শানাকা, কুসল জেনিথ পেরেরা, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, উপুল থারাঙ্গা, কুসল মেন্ডিজ, থিসারা পেরেরা, নিরোশান ডিকবেলা, সুরাঙ্গা লাকমাল, লাহিরু কুমারা, কাসুন রাজিথা, আকিলা ধনঞ্জয়া, প্রবথ জয়সুরিয়া ও লক্ষণ সান্দাকান।

দক্ষিণ আফ্রিকা দল : ফাফ ডু-প্লেসিস (অধিনায়ক), হাশিম আমলা, জুনিয়র ডালা, কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), জিন পল ডুমিনি, রেজা হেনড্রিক্স, হেইনরিচ ক্লাসেন, কেশব মহারাজ, আইডেন মার্করাম, ডেভিড মিলার, উইলিয়াম মুলডার, আন্দিলে ফেলুকুয়া, কাগিসো রাবাদা, তাবরিজ শামসি ও লুঙ্গি এনগিডি।




(বাসস) 



No comments

Powered by Blogger.