রুয়েট ৭৪ ব্যাচের প্রকৌ. মো. নজরুল ইসলাম আর নেই


রুয়েট '৭৪ সিরিজ পুরকৌশলের শিক্ষার্থী, বিসিআইসি'র অবসরপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী এবং কম্পোজিট স্টিল স্ট্রাকচার লিমিটেড-এর চিফ অ্যাডভাইজার জনাব প্রকৌ. মো. নজরুল ইসলাম ২৫ জুলাই ২০১৮ বুধবার দুপুর ১২:০৫ মিনিটে ঢাকাস্থ স্কয়ার হাসপাতালে হার্ট অ্যাটাকে ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজি'উন। 

তাঁর গ্রামের বাড়ি দিনাজপুর জেলার কাহারোল উপজেলার পানিগাঁও গ্রামে, ঢাকা'র বাড়ি আদাবর থানাধীন পিসিকালচার হাউজিং (ব্লক - খ), শেখেরটেক ৬ নং রোডে।

তিনি অসুস্থ হয় ভোর ৫টায় স্কয়ারে ভর্তি হয়েছিলেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৪ বছর। তিনি ১ পুত্র ও পুত্রবধু, ১ কন্যা ও জামাই, প্রিয় ২ নাতীসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও শুভাকাঙ্খী রেখে গেছেন। তাঁর মরদেহ বর্তমানে স্কয়ার হাসপাতালের বেজমেন্টে মরচ্যুয়ারিতে রাখা হয়েছে। আমেরিকাপ্রবাসী একমাত্র পুত্রসন্তান (মাকসিম, পুরকৌশল শিক্ষক, বুয়েট) কাল দুপুরে দেশে আসার পরেই তাঁর জানাজা ও দাফনের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এখানে উল্লেখ্য যে, মরহুম নজরুল ইসলাম ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরের আম্রকাননে গঠিত অস্থায়ী মুজিবনগর সরকারের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র পাঠকারী ও স্বাধীন বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধু নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রথম মন্ত্রীসভার শিক্ষামন্ত্রী মরহুম অধ্যাপক ইউসুফ আলী এমপি'র ২য় জামাতা এবং রুয়েট ৭৭ সিরিজ যন্ত্রকৌশলের মো. হাসানুজ্জামান সুবা'র ভায়রাভাই ছিলেন। তাঁর স্ত্রী কয়েকবছর আগে ইন্তেকাল করেছেন। তিনি রুয়েট জীবনে বর্তমানে ক্যানাডাপ্রবাসী প্রকৌ. লে.কর্ণেল কাজী শাফায়েতুল হক (অব.) মিন্টু ভাইয়ের ৪ বছর রুমমেট ছিলেন। তাঁদের রুমে থেকেই আমি রুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছিলাম। অথচ ঐদিনের পূর্ব পর্যন্ত আমরা দুজন কোন সূত্রেই পরস্পরের পরিচিত ছিলাম না, ওঁনারা আমার ও সোবহানের জন্য পুরো রুম ছেড়ে দিয়েছিলেন। তিনি ছিলেন অত্যন্ত সজ্জন নিরঅহঙ্কার ও উদার মনের মানুষ।

No comments

Powered by Blogger.