শাবি ছাত্রী হত্যা রহস্য উন্মোচনের দাবি


শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী মৃত্তিকা রহমানকে হত্যা করা হয়েছে নাকি তিনি আত্মহত্যা করেছেন এবিষয়ে রহস্য উন্মোচনের দাবি জানানো হয়েছে। রহস্যজনক ওই মৃত্যুর সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের বিচার দাবি করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন শেষে এক সমাবেশে ওই দাবি করেন তারা। গত ৩ জুলাই পঞ্চগড় জেলায় শ্বশুরবাড়িতে নিজ কক্ষে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় মৃত্তিকার লাশ।

রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। পরে মৌনমিছিল ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই সাথে এসে সমাবেশে মিলিত হয়। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. ফারুক উদ্দিন, সাবেক শিক্ষার্থী রাশেদুল হক, আকতারুজ্জামান রিন্টু প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা রহস্যজনক এ মৃত্যুর সুষ্ঠ তদন্ত দাবি করেন। এসময় মৃত্তিকা’র মৃত্যুর জন্য তার স্বামীর নির্যাতন ও পরকীয়া জড়িত থাকতে পারে বলে সন্দেহ পোষণ করেন।

শিক্ষার্থীদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১১-১২ সেশনের শিক্ষার্থী মৃত্তিকা রহমানের ব্যাক্তিত্বের (সংস্কৃতিকর্মী) সঙ্গে তার আত্মাহত্যার বিষয়টি কোনভাবেই মেলানো যায় না। ২০১২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ২০০৩-০৪ সেশনের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ জুবেরীর সাথে তারে বিয়ে হয়।

জুবেরী পঞ্চগড়ে বোদা উপজেলায় একটি ব্যাংকের ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। মৃত্তিকাকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেন শিক্ষার্থীরা। এঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং মৃত্তিকার আত্মহত্যার প্ররোচণাদান ও নির্যাতনকারীর বিচার দাবি করা হয় মানববন্ধন থেকে।



No comments

Powered by Blogger.