রুয়েটে বাসচালককে কুপিয়ে হত্যা


রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) বাস চালক আব্দুস সালামকে (৫০) কুপিয়ে হত্যা করেছে ‍দুর্বৃত্তরা। সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রুয়েটের শেখ হাসিনা হলের পেছনে এ ঘটনা ঘটে।

রুয়েটের সহকারি পরিচালক (সিকিউরিটি) জালাল উদ্দিন জানান, বাস চালক আব্দুস সালামকে কুপিয়ে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এ সময় সালামকে আহত অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেলে নেওয়া হলে সেখানেই তার মৃত্যু হয়।

নিহতের বাড়ি মহানগরীর দেবীশিংপাড়া এলাকায়। তবে তিনি রুয়েটের কর্মচারী কোয়ার্টারে থাকতেন।

পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব আলম জানান, সোমবার রাতে রুয়েটে বাস রেখে আব্দুস সালাম হেটে বাড়ি ফিরছিলেন। ওই সময় কয়েকজন দুর্বৃত্ত তার উপর হামলা চালিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। তার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন গিয়ে তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করেন। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসকরা তাকে ৮নং ওয়ার্ডে পাঠালে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আব্দুস সালাম মারা যান।

নিহতের মাথায় ও শরীরে অসংখ্য ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। কি কারণে বা কারা এ হামলা চালিয়েছে তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের সনাক্ত করতে তদন্ত শুরু করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

রুয়েটের অপর বাস চালক আব্দুল হালিম জানান, রাত সাড়ে ৯টার দিকে রুয়েটের শেখ হাসিনা হলের পেছনে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে ছিলেন আব্দুস সালাম। পরে তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। জরুরী বিভাগের চিকিৎসক তাকে হাসপাতালের ৮নং ওয়ার্ডে পাঠায়। সেখানকার চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আব্দুস সালামের শরীর, পেট ও মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলেও জানান তিনি।


হাসপাতাল পুলিশ বক্সের ইনচার্জ এএসআই শফিক জানান, রুয়েট থেকে আহত অবস্থায় সালামকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

তবে কে বা কারা তাকে কুপিয়েছে তা জানা যায়নি বলেও জানান তিনি।

এদিকে মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে রুয়েটের প্রশাসন ভাবনের সামনে হত্যারিদের গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে কর্মচারীরা। বিক্ষোভ থেকে বাসচালক আব্দুস সালামকে হত্যাকারিদের গ্রেফতারের দাবিতে জানানো হয়।


No comments

Powered by Blogger.