বিস্ফোরণে দগ্ধ কুয়েটের আরও এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু কুয়েট ভাইস-চ্যান্সেলরের গভীর শোক প্রকাশ

বিস্ফোরণে খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) দগ্ধ হয়ে চিকিৎসাধীন অপর এক শিক্ষার্থী মোঃ শাহীন মিয়া গতকাল বুধবার রাত সোয়া ১১টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে মৃত্যুবরণ করছেন। এ ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর। এক শোক বিবৃতিতে কুয়েট ভাইস-চ্যান্সেলর নিহতের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও আহত ২জন শিক্ষার্থীর আশু সুস্থতা কামনা করেন এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

উল্লেখ্য, ২৫ মার্চ রবিবার রাত ১টায় ময়মনসিংহের ভালুকায় দূর্ঘটনাটি ঘটে। কুয়েটের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শেষবর্ষের এ শিক্ষার্থীরা গত ১০ মার্চ ২০১৮ তারিখ থেকে ০৫ এপ্রিল ২০১৮ তারিখ পর্যন্ত স্কয়ার গ্রæপের একটি টেক্সটাইল মিলে এক মাসের ইন্ডাস্ট্রিয়াল এটাচমেন্টের (ইন্টার্নি) জন্য ময়মনসিংহের ভালুকার মাষ্টার বাড়ি এলাকার একটি ৬ তলা ভবনের ৩য় তলায় অবস্থান করছিল। দূর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই নিহত হয় মোঃ তৌহিদুল ইসলাম বুধবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করে মোঃ শাহীন মিয়া। গুরুতর দগ্ধ মোঃ হাফিজুর রহমান ও দিপ্ত সরকার বর্তমানে ঢাকা মেডিকেলের বার্ণ ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

খবর শোনার পরই আহতদের দেখতে ঢাকা মেডিকেলের বার্ণ ইউনিটে যান বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর। টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধানসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষক ও শিক্ষার্থী বর্তমানে হাসপাতালে অবস্থান করে চিকিৎসার সবধরণের সহযোগিতা নিশ্চিত করছেন।

No comments

Powered by Blogger.