গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে কুয়েট শিক্ষার্থীদের হতাহতের ঘটনায় কুয়েট ভাইস-চ্যান্সেলরের গভীর শোক প্রকাশ :: শোকাহত বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার


গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) শিক্ষার্থীদের হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর। এক শোক বিবৃতিতে কুয়েট ভাইস-চ্যান্সেলর নিহতের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও আহতদের আশু সুস্থতা কামনা করেন এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। ২৫ মার্চ রবিবার রাত ১ টায় ময়মনসিংহের ভালুকায় এ দূর্ঘটনা ঘটে।

দূর্ঘটনার ঘটনায় বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে সংশ্লিষ্ট বিভাগসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ সমগ্র বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার। খবর শোনার পরই কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে হতাহতদের সহপাঠীরা, শোকে অনেকে বাকরুদ্ধ। খবর শোনার পর পর আহতদের দেখতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে ঢাকার উদ্যেশ্যে রওনা হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর। টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধানসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষক বর্তমানে হাসপাতালে অবস্থান করে চিকিৎসার সবধরণের সহযোগিতা নিশ্চিত করছেন। 

কুয়েটের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শেষবর্ষের এ শিক্ষার্থীরা গত ১০ মার্চ ২০১৮ তারিখ থেকে ০৫ এপ্রিল ২০১৮ তারিখ পর্যন্ত স্কয়ার গ্রæপের একটি টেক্সটাইল মিলে এক মাসের ইন্ডাস্ট্রিয়াল এটাচমেন্টের (ইন্টার্নি) জন্য ময়মনসিংহের ভালুকার মাষ্টার বাড়ি এলাকার একটি ৬ তলা ভবনের ৩য় তলায় অবস্থান করছিল। দূর্ঘটনায় নিহত কুয়েট শিক্ষার্থী মোঃ তৌহিদুল ইসলাম এর বাড়ি বগুড়া জেলায়, আহত মোঃ শাহীন মিয়া, মোঃ হাফিজুর রহমান ও দিপ্ত সরকারের বাড়ি যথাক্রমে সিরাজগঞ্জ, নওঁগা ও মাগুরা জেলায়। আহতরা ঢাকা মেডিকেলের বার্ণ ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছে। 

No comments

Powered by Blogger.