চলে গেলেন প্রখ্যাত বিজ্ঞানী ও পদার্থবিদ স্টিফেন হকিং


প্রখ্যাত পদার্থবিদ ও মহাকাশ বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং আর নেই। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার কেমব্রিজের নিজ বাড়িতে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর। বিজ্ঞানীর পরিবার তার মৃত্যুর সংবাদটি নিশ্চিত করেছেন।

স্টিফেন হকিং ছিলেন একটি তত্ত্বীয় পদার্থবিদ। মহাকাশ নিয়ে তার গবেষণা বিজ্ঞানী মহলে সাড়া ফেলে দিয়েছিল। মহাকাশে কৃষ্ণ গহ্বর নিয়ে তার তত্ত্ব বিজ্ঞান মহলে সমাদৃত।

তার মৃত্যুতে শোক জানিয়ে গণমধ্যামে বিবৃতি দিয়েছে বিজ্ঞানীর সন্তানরা। মেধাবী এই বিজ্ঞানীর মৃত্যুতে তারা শোকাচ্ছন্ন বলে জানিয়েছেন। স্টিফেন হকিং তার আবিষ্কারের মধ্য দিয়ে সবার মাঝে বেঁচে থাকবেন।


মি. হকিং এর তিন সন্তান লুসি, রবার্ট এবং টিম বলেছেন "আমরা দু:খের সঙ্গে জানাচ্ছি যে আমাদের প্রিয় বাবা আজ মারা গেছেন। তিনি একজন বড় বিজ্ঞানীই ছিলেন না তিনি ছিলেন একজন অসাধারণ মানুষ, যাঁর কাজ বহু বছর বেঁচে থাকবে"।

১৯৪২ সালের ৮ জানুয়ারি ব্রিটেনে জন্মগ্রহণ করেন স্টিফেন হকিং। ১৯৬৩ সালে মাত্র ২১ বছর বয়সে স্টিফেন হকিং মটর নিউরন রোগে আক্রান্ত হয়ে চলাফেরার শক্তি হারিয়ে ফেলেন। চিকিৎসকরা তাকে দুবছর বেচে থাকার আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু ভাগ্যক্রমে তার এই রোগ ধীরে ধীরে কমতে থাকায় তিনি দীর্ঘ জীবন লাভ করেন।


তাকে একজন মেধাবী তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানী হিসেবে মনে করা হয়। লেখা পড়ার প্রতি ছিল তার তীব্র আগ্রহ। যে কারণে তিনি চলাফেরার শক্তি হারিয়েও পিএইচডি ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। তিনি কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ছিলেন। ২০০৯ সালে সেখান থেকে অবসরে যান। গুণী এই বিজ্ঞানীকে নিয়ে চলচ্চিত্র পর্যন্ত নির্মাণ করা হয়েছে। যার নাম থিওরি অব এভরিথিং।

১৯৮৫ সালে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসেন হকিং৷ ১৯৮৫ সালের গ্রীষ্মে জেনেভার CERN এ অবস্থানকালে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়েছিলেন বিজ্ঞানী ৷ চিকিৎসকরাও তাঁর কষ্ট দেখে একসময় লাইফ সাপোর্ট সিস্টেম বন্ধ করে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন৷ 


সূত্র: বিবিসি

No comments

Powered by Blogger.