‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বিশুদ্ধ পানি ও স্যানিটেশন বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে’


মোঃ আলাউদ্দিন, চুয়েট প্রতিনিধিঃ

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট)-এর ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, আমাদের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের জন্য বিশুদ্ধ পানি ও স্যানিটেশন বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে। আমরা দৈনন্দিন প্রয়োজনে অনাদিকাল থেকে ভূ-পৃষ্ঠের পানির উপর নির্ভরশীল ছিলাম। কিন্তু বর্তমান সময়ে দ্রুত নগরায়ন ও শিল্পায়নের ফলে ক্রমশ বিশুদ্ধ পানির সঙ্কট দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে উপকূলীয় অঞ্চল ও গ্রামীণ জনপদে আর্সেনিক ও দূষণ সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে। তাছাড়া চট্টগ্রাম ও পার্বত্য অঞ্চলের পাহাড়ি জনপদে ভূ-গর্ভস্থ পানি উত্তোলন যেমন কষ্টসাধ্য তেমনি নিরাপদ ও জীবাণমুক্ত পানি পাওয়া দুরহ। উপরন্তু জলাবদ্ধতা সমস্যার কারণে চট্টগ্রাম নগরীতে বিশুদ্ধ পানির অভাব মারাত্মক পর্যায়ে পৌঁছেছে। যে কারণে এ অঞ্চলের স্যানিটেশন ব্যবস্থাও হুমকির সম্মুখীন হচ্ছে।

 তিনি বলেন, চট্টগ্রাম অঞ্চলে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়। সেক্ষেত্রে বৃষ্টির পানি সংরক্ষণের মাধ্যমে এই সঙ্কট নিরসন করা সম্ভব। ‘রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং’ পদ্ধতিটা এই অঞ্চলের মানুষের কাছে নতুন নয়। এটি বরং বিশুদ্ধ পানি সংরক্ষণের একটি সহজ ও বৈজ্ঞানিক উপায়। 

চুয়েটের পুরকৌশল (সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং) বিভাগের আয়োজনে ‘রেইন ওয়াটার হার্ভেস্টিং’ শীর্ষক এক প্রশিক্ষণ কর্মশালা উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অদ্য ০৮ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার), ২০১৮ খ্রি. পুরকৌশল বিভাগের সেমিনার কক্ষে পুরকৌশল বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. মোঃ মইনুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পুরকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আব্দুর রহমান ভূঁইয়া, ওয়াটার এইড বাংলাদেশের পরিচালক ড. এম.এ লিয়াকত আলী, রেইন ফোরামের প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী সৈয়দ আজিজুল হক প্রমুখ। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রোগ্রাম সমন্বয়ক ও পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফুল হক। 

কর্মশালায় চুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে ওয়াটার এইডের পক্ষ থেকে চুয়েট ভাইস চ্যান্সেলরকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। 

Powered by Blogger.