মেসির প্রথম গোলে রক্ষা পেল বার্সেলোনা


চেলসির বিপক্ষে ক্যারিয়ারে প্রথম গোলের দেখা পেলেন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক ও বার্সেলোনার সেরা তারকা লিওনেল মেসি। চেলসির বিপক্ষে তার প্রথম গোলেই উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলোর প্রথম লেগের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র করেছে বার্সেলোনা। প্রতিপক্ষের মাঠে ৬২ মিনিটে পিছিয়ে পড়েও ৭৫ মিনিটে মেসির গোলে হার এড়াতে সক্ষম হয় বার্সা। এবার অ্যাওয়ে গোলের সুবিধা নিয়ে আগামী ১৪ মার্চ নিজেদের মাঠ নু’ক্যাম্পে ফিরতি লেগ খেলতে নামবে বার্সেলোনা। 

শেষ ষোলের প্রথম লেগে বার্সেলোনা-চেলসির ম্যাচ নিয়ে যতটা না কথা হয়েছে, তার চেয়ে বেশি আলোচনা হয়েছে মেসিকে নিয়ে। অবশ্য বার্সেলোনার প্রত্যক ম্যাচের আগেই মেসি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতেই থাকেন। তবে চেলসির বিপক্ষে ম্যাচের আগে মেসিকে নিয়ে আলোচনা অনেক বেশিই হয়েছে, এটি বলার অপেক্ষা রাখে না। কারন ক্লাব ফুটবলে প্রায় সাড়ে পাঁচশ গোল থাকলেও চেলসির বিপক্ষে কোন গোল নেই মেসির। অবশেষে সেই চেলসি-গেরো কাটলো মেসির। 

স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে নিজেদের মাঠে খেলতে নেমে শুরু থেকেই দ্বিধা-দন্দে পড়ে যায় চেলসি। ম্যাচের প্রথম ২০ মিনিট পায়ে বল রাখার সুযোগই পায়নি তারা। বল নিজেদের দখলেই রেখে চেলিসকে চাপে রাখে বার্সেলোনা। তাই নিজেদের ঘর সামলাতে ব্যতিব্যস্ত হয়ে পড়ে চেলসি। তবে নিজেদের ঘর ভালোভাবেই সামাল দিয়েছে স্বাগতিকরা। কারণ বার্সার আক্রমনগুলো দক্ষতার সাথে সামাল দিয়েছে ব্লুজরা। প্রথমার্ধে ৭৫ শতাংশ বল দখলে রেখেও গোলের দেখা পায়নি বার্সেলোনা। এ অর্ধে গোল না হওয়ায় বার্সেলোনা যতটানা হতাশ হয়েছে, ততটা আনন্দিত হয়েছে চেলসি। তারপরও প্রথমার্ধে ভালো দু’টি আক্রমন শানিয়েছিলো চেলসি। ৩৩ ও ৪১ মিনিটে এডেন হ্যাজার্ডের যোগান দেয়া বল উইলিয়ান কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন। অবশ্য উইলিয়ানের দোষ না দিয়ে তার ভাগ্যের দোষ দেয়াই ভালো। কারণ উইলিয়ানের দু’টি শট দু’বারই গোল পোস্টে গিয়ে ফিরে আসে। 

প্রথমার্ধে নিজেদের খেলায় সন্তুষ্ট হয়ে দ্বিতীয়ার্ধে জ্বলে উঠে চেলসি। তাই এই অর্ধের শুরু থেকেই বলের নিয়ন্ত্রণ নেয়। সেই সুবাদে ৬২ মিনিটেই গোল আদায় করে নেয় চেলসি। এবার ভাগ্যদেবি ফেরায়নি উইলিয়ানকে। কর্নার থেকে বল পেয়ে যান হ্যাজার্ড। ডি-বক্সের মধ্যে সেই বল যোগান দেন উইলিয়ানকে। মাপা-নিখুত শটে বার্সার জালে বলকে পাঠিয়ে দেন উইলিয়ান(১-০)। গোলের আনন্দে নেচে উঠে পুরো স্ট্যামফোর্ড ব্রিজ। 

অবশ্য এই আনন্দ খুব বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি চেলসি। ৭৫ মিনিটে এবার ভাগ্যদেবি ফিরে তাকান মেসির দিকে। সতীর্থ আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার সাথে দারুন বোঝাপোড়ায় বল পেয়ে চেলসির জালে বল পাঠান মেসি। আর তাতেই ম্যাচে ফিরে বার্সেলোনা। ম্যাচে সমতা ফেরায় বার্সেলোন যতটানা খুশী, তার চেয়ে মেসির গোল পাওয়াতে আনন্দিত বার্সা। কারন এই চেলসির বিপক্ষেই মেসির স্কোর ছিরো ‘ডাক’, অর্থ্যাৎ শূন্য।

৭৫ মিনিটে ম্যাচে সমতা আসার পরও গোলের জন্য চেষ্টা করেছে বার্সেলোনা ও চেলসি। কিন্তু কেউই সফল না হওয়ায় ১-১ সমতা নিয়েই মাঠ ছাড়ে দু’দল। 

এদিকে, দিনের আরেক ম্যাচে জার্মান ক্লাব বার্য়ান মিউনিখ ৫-০ গোলে হারিয়ে বেসিকতাসকে। মিউনিখের পক্ষে থমাস মুলার ও রবার্ট লিওনোদস্কি ২টি করে এবং কিংসলে কোমান ১টি গোল করেন। 


(বাসস)


 

No comments

Powered by Blogger.