মধুসূদন দত্ত বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী ছিলেন : রাষ্ট্রপতি


রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী ছিলেন। জন্মভূমির প্রতি কবির গভীর অনুরাগ আগামী প্রজন্মের জন্য দেশপ্রেমের চিরন্তন উৎস হয়ে থাকবে।

মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে দেয়া এক বাণীতে রাষ্ট্রপতি এ কথা বলেন।

উল্লেখ্য, মধুসূদন দত্তের ১৯৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আগামীকাল শনিবার থেকে (২০ জানুয়ারি) যশোরের কেশবপুর উপজেলার সাগরদাঁড়িতে শুরু হচ্ছে সপ্তাহব্যাপী মধুমেলা। মেলা চলবে ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত।

মাইকেল মদুসূদন দত্ত ১৮২৪ সালের ২৫ জানুয়ারি কেশবপুর উপজেলার সাগরদাঁড়ি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৮৭৩ সালে ২৯ জুন কলকাতায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

রাষ্ট্রপতি বলেন, মধুসূদন দত্তের হাতে বাংলা সাহিত্য পেয়েছে নবরূপ, হয়েছে সমৃদ্ধ ও ঐশ্বর্যম-িত। তিনি একাধারে বাংলা সাহিত্যে প্রথম মহাকাব্যের রচয়িতা, অমিত্রাক্ষর ছন্দের প্রবর্তক, সনেট রচয়িতা ও আধুনিক শিল্পকলাসম্মত নাট্যকার।

মো. আবদুল হামিদ বলেন, তিনি অভূতপূর্ব সৃষ্টি-নৈপুণ্য প্রদর্শন করে বাংলা সাহিত্যে পথিকৃতের ভূমিকা পালন করেছেন। কবি তাঁর লেখায় যে অসাধারণ প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে গেছেন তা এক কথায় বিস্ময়। উনিশ শতকে বাঙালি নবজাগরণের অন্যতম পথিকৃৎ মাইকেল মধুসূদন তাঁর অনন্য সাধারণ প্রতিভা দিয়ে বাংলা ভাষার অন্তর্নিহিত শক্তির উদ্বোধনসহ বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের যে উৎকর্ষসাধন করে গেছেন তা বাঙালির তো বটেই, গোটা বিশ্ব সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করেছে নতুন মাত্রা।

রাষ্ট্রপতি কবির জন্মবার্ষিকীতে তাঁর স্মৃতির গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে ‘মধুমেলা ২০১৮’-এর সাফল্য কামনা করেন। 


 (বাসস)


No comments

Powered by Blogger.