কলকাতায় জেমসের টানে হাজারও মানুষ


এমনিতেই একই ভাষা ভাষির মানুষ হওয়ায় তার প্রতি অদম্য টান, তার উপর বেশকিছু হিন্দি গান গেয়েও তুমুল জনপ্রিয়তা পাওয়ায় বাংলাদেশি দর্শক শ্রোতাদের চেয়ে ভারতীয় দর্শকের কাছে কোনো অংশে কম জনপ্রিয় নন ‘নগর বাউল’ খ্যাত রকস্টার মাহফুজ আনাম জেমস। আর সেটাই যেন বুধবার রাতে প্রমান করলো কলকাতার হাজারো মানুষ।

কলকাতার পানিহাটিতে চলছে পানিহাটি উৎসব ও বইমেলা। আর এখানেই বুধবার(২৭ ডিসেম্বর) আমন্ত্রিত ছিলেন বাংলাদেশের রকস্টার জেমস। আর এদিন তার গান শুনতেই পানিহাটি উৎসবে উপস্থিত হয় হাজারো দর্শক শ্রোতা। বলা হচ্ছে, কলকাতায় পানিহাটি উৎসবে স্মরণকালে এরআগে কারো গান শুনতে এতো মানুষের সমাগম ঘটেনি।

কলকাতার পানিহাটিতে জেমসের সফল শো’নিয়ে তার সঙ্গে থাকা প্রিন্স মোহাম্মদ চ্যানেল আই অনলাইনকে জানান, জেমস ভাইকে কলকাতায়ও এতো এতো মানুষ এভাবে ভালোবাসে তা নিজের চোখে না দেখলে বিশ্বাস হতো না। জেমস ভাইয়ের প্রতিটি গানের সঙ্গে সঙ্গে ঠোঁট মিলাচ্ছিলেন উপস্থিত মানুষেরা। এটা একটা অভাবনীয় দৃশ্য।

পানিহাটি উৎসব ও বইমেলায় আগেই ঘোষণা হয় জেমসের নাম। আর সরাসরি তার গান শুনতে ও তাকে এক নজর দেখতে এদিন মেলাস্থলে উপচে পড়ে মানুষে। বুধবার সন্ধ্যা থেকেই সকলে অপেক্ষা করতে থাকেন বাংলাদেশের এই তারকা রকস্টারের জন্য। তিনি মঞ্চে ওঠেন রাত প্রায় সাড়ে আটটায়। টানা দেড় ঘন্টা তিনি মঞ্চে একের পর এক গান পরিবেশন করেন।

কবিতা, বিজলী, যাত্রা, মিরাবাঈ, সুলতানা বিবিয়ানা, তারায় তারায়, ফুল নেবেনা অশ্রু নেবে, গুরু, মা, দিদিমনি, চাল চালে আপনি ঘর, ভিগি ভিগিসহ মোট ১২টি গান তিনি পরিবেশন করেন। তুমুল কড়তালিতে ফেটে পড়ে পুরো পানিহাটি উৎসবস্থল। এক ফাঁকে জেমসকে সম্মাননা জানাতে মঞ্চে ওঠেন পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার মুখ্য সচেতক শ্রী নির্মল ঘোষ। তিনি জেমসকে উত্তরীয় পরিয়ে দেন এবং তার হাতে একটি ক্রেস্ট তুলে দেন।

No comments

Powered by Blogger.