প্রথম দিনেই জমজমাট ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড


বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) দেশের সবচেয়ে বড় আয়োজন ‘ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৭’ শুরু হয়েছে। ৬ ডিসেম্বর বুধবার চার দিনব্যাপী আইসিটি সেক্টরের মেগা ইভেন্ট আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি বলেন, দেশের মেধাবী তরুণ প্রজন্মই আইসিটি সেক্টরকে এগিয়ে নেয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশকে উন্নত দেশের কাতারে শামিল করার স্বপ্ন সার্থক করবে।

সুন্দর আগামীর জন্য তরুণ প্রজন্মকে প্রস্তুত হওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা তরুণদের আধুনিক প্রযুক্তি শিক্ষায় দক্ষ করে গড়ে তুলছি। কাজেই সমগ্র বিশ্ব এখন তাদের হাতের মুঠোয় এবং আমি আশা করি এই তরুণরাই দেশকে এগিয়ে নিয়ে জাতির জনকের উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্নকে সার্থক করবে।’

আইসিটি খাত ২০২১ সাল নাগাদ দেশের দেশের উন্নয়নের সবথেকে বড় অংশীদার হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে এবং আমরা আমাদের জিডিপিকে ৭ দশমিক ২৮ ভাগে উন্নীত করতে সক্ষম হয়েছি। রপ্তানিও আমাদের বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু আমি মনে করি, আইসিটি সেক্টরটাকে যদি আমরা আরও সুযোগ দিই তাহলে এখান থেকেই আমাদের রপ্তানি আরও ব্যাপক হারে আসবে। আমাদের আর অন্য কোনোদিকে তাকাতে হবে না এবং আমাদের ছেলে-মেয়েরা এ ব্যাপারে যথেষ্ট মেধাবী।’

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং আইসিটি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ইমরান আহমেদ এবং বাংলাদেশ সফটওয়্যার ইনফর্মেশন সার্ভিসেস (বেসিস) সভাপতি মোস্তফা জব্বার। আইসিটি মন্ত্রণালয়ের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন।

দুপুরে রোবট সোফিয়াকে দেখতে রীতিমত জটলা বাধে বিআইসিসেতে।

প্থম দিনের আয়োজন
এক. সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে ব্যবসা বৃদ্ধি: বর্তমান সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই ব্যবসার প্রচারণার নতুন হাতিয়ার এই ফেসবুক। এই মাধ্যম ব্যবহার করে ব্যবসা দাঁড় করানোর নানা কৌশল নিয়ে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে অনুষ্ঠিত হয় ‘গ্রো ইয়োর বিজনেস ইউজিং ফেসবুক’ নামে একটি সেমিনার।
ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের প্রথম দিন সেমিনারটি দুপুর আড়াইটা থেকে শুরু করে সাড়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়। এতে ফেসবুক ব্যবহার করে কীভাবে ব্যবসার প্রসার করা যায়, তা নিয়ে আলোচনা করা হবে। এ ছাড়া বর্তমানে যারা ফেসবুক ব্যবহার করে ব্যবসা করছেন, তারা কী কী সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন তা এতে তুলে ধরা হয়।
এই আয়োজনে স্পিকার হিসেবে ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, ড্রিম৭১ বাংলাদেশের পরিচালক রাশেদ কবির, ই-ক্যাবের পরিচালক নাসিমা আক্তার নিশো ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াহেদ তমাল, আইসিটি বিভাগের প্রাক্তন অতিরিক্ত সচিব হারুনুর রশিদ।

দুই. গেইমিং ক্যারিয়ারের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ:
ডেস্কটপ ও স্মার্টফোন উভয় ক্ষেত্রে গেইমিং বেশ জনপ্রিয়। বাংলাদেশে এই খাতটি মাত্র শুরু হয়েছে এবং এর পরিধি ধীরে ধীরে বাড়ছে। গেইমিং নিয়ে ‘ক্যারিয়ার ইন গেইমিং ইন্ডাস্ট্রি: প্রেজেন্ট অ্যান্ড ফিউচার’ বিষয়ক একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয় ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের প্রথম দিনে। সেমিনারটি বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের সেলিব্রেটি হলে বেলা আড়াইটায় অনুষ্ঠিত হয়ে, চলে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত।

এতে মূল আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অ্যাংরি বার্ডসের গেইম উন্নয়ন কর্মকর্তা লরি লুকা। বর্তমান বাজারে কোনো ধরনের গেইমের চাহিদা বেশি এবং কেমন গেম বানালে তা ভালো হবে, সে বিষয়ে আলোচনা করবেন তিনি।
গেইমিং শিল্পে বর্তমান ও ভবিষ্যৎ ক্যারিয়ার এবং মোবাইল অ্যাপ ও গেইম মনিটাইজেশনের সুবিধা ও চ্যালেঞ্জ নিয়ে আলোচনা হয় এতে। দেশীয় প্রতিষ্ঠানের ডেভেলপাররাও এতে ছিলেন।

এছাড়া সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে স্মার্টফোন ব্যবহারকারী বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর এই ডিজিটাল যুগে স্মার্টফোনের অ্যাপ জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে কাজে লাগে। তাই তো মোবাইল অ্যাপের একটি বড় বাজার রয়েছে। এই বাজার সর্ম্পকে ধারণা ও নানা প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে আলোচকরা। স্পিকার হিসেবে ছিলেন রাইজ আপ ল্যাবসের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী এরশাদুল হক, স্পিনওফ স্টুডিওয়ের প্রধান নির্বাহী আসাদুজ্জামান আসাদ, ড্রিম৭১ বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী রাশেদ কবিরসহ আরও অনেকেই।

তিন. পেমেন্ট সার্ভিস বিষয়ে সেমিনার:
ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের প্রথম দিনে ‘পেইমেন্ট সার্ভিস অপরচুনিটি: সুযোগ এবং চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক সেমিনার চারটা থেকে সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় সেলিব্রেটি হলে। সেমিনারে বাংলাদেশে পেমেন্ট সার্ভিসেস ইকোসিস্টেমের সুযোগ ও চ্যালেঞ্জ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। এছাড়া বাংলাদেশের পেমেন্ট সার্ভিসেসের সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জের বিষয়ে তাদের দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে আলোচনা করা হয়।
এতে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এসএসএল ওয়্যারলেসের ই-কর্মাস বিভাগের প্রধান ন্যাওয়াট আস্কিন, মাস্টার কার্ডের কান্ট্রি ম্যানেজার সাইদ এম কামাল, বিকাশের প্রধান নির্বাহী কামাল কাদীর ও ই-ক্যাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াহেদ তমালসহ আরও অনেকেই সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

চার. রোবট সোফিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ:
বিশ্বজুড়ে আলোচিত কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার রোবট সোফিয়া বাংলাদেশে আসছে এই খবর ইতোমধ্যেই সকলের জানা। ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় প্রযুক্তি উৎসব ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে অংশ নেয় এটি।
বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ৬ ডিসেম্বর সোফিয়ার সঙ্গে দেখা করে অনেকে। এজন্য আয়োজন করা হয়েছিল ‘টেক টক উইথ সোফিয়া’ শীর্ষক অনুষ্ঠান। সম্মেলন কেন্দ্রের হল অব ফেইমে বেলা আড়াইটা হতে বিকাল সাড়ে চারটা পর্যন্ত অনুষ্ঠানটিতে উপস্থিত ছিল সোফিয়া। সঙ্গে ছিল তার নির্মাতা ড. ডেভিড হ্যানসনও।

পাঁচ. কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা:
কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা: চ্যাটবট ও ই-গভর্নেন্স লিভারেজিং শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয় বগ্রিন ভিউ হলে। এটি চলে দুপুর আড়াইটা পাঁচটা পর্যন্ত। সেমিনারে এআই নিয়ে আলোচনা করা হয়। সেমিনারে এআই এবং এর ব্যবহারের ওপর গুরুত্ব দেওয়া হবে বলে আলোচকরা জানান।

দ্বিতীয় দিনের আয়োজন
দ্বিতীয় দিনের ১২টি সেশনের মধ্যে উল্লেখযোগ্য সেশনগুলো হলো- হাই স্কুল প্রোগ্রামার কনফারেন্স, মিট নাফিস বিন জাফর, স্টার্টআপ বাংলাদেশ, অপরচুনিটি ফর ইনভেস্টরস অ্যান্ড স্টার্টআপস, সাইবার সিকিউরিটি রিস্কস, সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ইথিক্যাল হ্যাকিং, এমপ্লয়মেন্ট অব পারসনস নিউরোডেভেলপমেন্টাল ডিজঅ্যাবিলিটিজ ইন দ্য আইটি ইন্ডাস্ট্রি।
নানা আয়োজনে চার দিনব্যাপী ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড চলবে ৯ ডিসেম্বর শনিবার পর্যন্ত। প্রতিদিন মেলা চলবে সকাল নয়টা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত। ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে কোনো প্রবেশ ফি নেই। তবে এতে যেতে চাইলে www.digitalworld.org.bd এই ঠিকানায় গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। মেলা প্রাঙ্গণেও রেজিস্ট্রেশন করা যাবে।


(ঢাকা টাইমস)


No comments

Powered by Blogger.